adimage

২৫ অগাস্ট ২০১৯
বিকাল ১২:৩৪, রবিবার

অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত এসপি শাহ মিজান : এবারও ১০৩ টাকায় পুলিশে চাকরি

আপডেট  09:53 AM, Jul ১৫ ২০১৯   Posted in : জাতীয় দোহার-নবাবগঞ্জের সংবাদ    

অনুসরণীয়দৃষ্টান্তএসপিশাহমিজান:এবারও১০৩টাকায়পুলিশেচাকরি

কাজী জোবায়ের আহমেদ.

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমানের সফল নের্তৃত্বে এগিয়ে চলছে জেলা পুলিশের সকল কার্যক্রম। ২০১৬ সালের ১৬ জুলাই ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পর থেকেই সততার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। কনস্টেবল পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে শতভাগ স্বচ্ছতার প্রতিফলন ঘটিয়েছেন।

ঘুষ ছাড়া পুলিশে চাকরী পাওয়া যায় না এক সময় এমন ধারনা ছিল সাধারণ মানুষের। তবে শাহ মিজান শাফিউর রহমান দায়িত্ব গ্রহণের পর মাত্র ১০৩ টাকায় কনস্টেবল পদে চাকরী দিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। মানুষকে বিশ্বাস করতে শেখান ঘুষ ছাড়াও পুলিশে চাকরী পাওয়া যায়। তার দেখানো পথে এখন দেশের অনেক জেলায় এখন  ১০৩ টাকায় মিলছে পুলিশে চাকরী।

নিয়োগ প্রদান সংক্রান্তে তিনি কঠোর নীতিমালা গ্রহণ করে সম্পূর্ণ স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় গত দুই বছরে মোট ১৫৩০ জন টিআরসির নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন। চলতি বছর ঢাকা জেলায় কনস্টেবল পদে ১০৩ টাকায় নিয়োগ পেয়েছেন মোট ১২৩৫ জন। এদের মধ্যে ২৯১ জন নারী। এছাড়া ২০১৮ সালে ৬৯৯ জন, ২০১৭ সালে ৪৬৭ জন এবং ২০১৬ সালে এ জেলায় নিয়োগ পান ৪৬৪ জন।

জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের তথ্য মতে, চলতি বছরে ঢাকা মহানগর ২৮৭ জন, সাভার ১২০ জন, আশুলিয়া ১৬০ জন, ধামরাই ৪২১ জন, কেরানীগঞ্জ মডেল ৪৭ জন, দক্ষিন কেরানীগঞ্জ ৪০ জন, দোহার ৪০ জন, নবাবগঞ্জে ১২০ জন কনস্টেবল পদে নিয়োগ পান। যেখানে শতভাগ স্বচ্ছতা ও দক্ষতার মাধ্যমে সকল কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন শাহ মিজান শফিউর রহমান।

জানা যায়, স্বাধীনতার পর ৩১তম পুলিশ সুপার ও ঢাকা জেলার ৯২তম পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান বিপিএম (বার) পিপিএম গত ২০১৬ সালের ১৬ জুলাই ঢাকা জেলায় যোগদান করেন। পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পর থেকে সততার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন এই চৌকস পুলিশ অফিসার। সৎ, পেশাদার, স্বচ্ছ ভাবমূর্তির এই পুলিশ কর্মকর্তা বিসিএস (পুলিশ) এর ২০তম ব্যাচের মাধ্যমে ২০০১ সালে বাংলাদেশ পুলিশের এএসপি হিসেবে যোগদান করেন। আইনের সুশাসন জনগনের দৌড়গোড়ায় পুলিশি সেবা পৌঁছে দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি।

এছাড়া পরপর দুইবার জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নিয়ে বিশেষ অবদান রাখেন তিনি। সেখানে ইনসাইড কমান্ডার ও ডেপুটি সেক্টর পুলিশ কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। স্বীকৃতি স্বরূপ পেয়েছেন ‘জাতিসংঘ শান্তি পদক’।

মানব সেবাও কাজ করে যাচ্ছে এই পুলিশ কর্মকর্তা। গত বছর প্রিয় বাংলা অনলাইন ও প্রিন্ট সংস্করণে নবাবগঞ্জের আগলার স্বেচ্ছাসেবী ট্রাফিক মুজাফ্ফর মুজাকে নিয়ে “বিনে পয়সায় ৩০ বছর ট্রাফিক সেবায় নবাবগঞ্জের মুজা পাগলা” শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে অসহায় পরিবারটি পাশে দাঁড়ান ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান। মুজা পাগলাকে সন্মাননা ও আর্থিক অনুদান দেন ঢাকা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে। তার এই কাজের জন্য সাধারণ মানুষের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেন তিনি।

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান প্রিয় বাংলাকে বলেন, ঢাকা জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পর পুলিশ কনস্টেবল পদে ১০৩ টাকায় চাকরি নিশ্চিত করেছি। কনস্টেবল নিয়োগের ক্ষেত্রে পুলিশ হেড কোয়ার্টারের নির্দেশনা অনুযায়ী পরিক্ষার মাধ্যমে মেধাবী ও দক্ষদের দেখে নিয়োগ প্রদান হয়েছে। আমি সব সময় এই বিষয়টি যথাযথভাবে গুরুত্ব দিয়েছি। আর পরিক্ষার খাতায় কোরিং নাম্বার বসানো থাকায় এখানে রয়েছে শতভাগ স্বচ্ছতা। আাগামীতেও এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul