adimage

২৫ অগাস্ট ২০১৯
বিকাল ১২:৪৭, রবিবার

শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে বারুয়াখালী পশুর হাট

আপডেট  11:12 AM, অগাস্ট ১০ ২০১৯   Posted in : জাতীয় দোহার-নবাবগঞ্জের সংবাদ    

শেষমুহুর্তেজমেউঠেছেবারুয়াখালীপশুরহাট

প্রিয় বাংলা অনলাইন.

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার বারুয়াখালী কোরবানির পশুর হাট শেষ মুর্হুতে বেশ জমে উঠেছে। ক্রেতা ও বিক্রেতাদের আনাগোনায় কোরবানির হাটটি এখন সরগরম। প্রতিদিনই বাড়ছে ক্রেতার সংখ্যা। তেমনি ব্যবসায়ীরা গরু নিয়ে হাজির হচ্ছেন বারুয়াখালী হাটে।

উপজেলার জয়কৃষ্ণপুর, শিকারীপাড়া ইউনিয়নসহ পাশ্ববর্তী মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে স্থানীয় কৃষক, খামারি এবং ব্যবসায়ীরা গরু নিয়ে আসছেন হাটে। বেচাকেনাও বেশ ভাল বলে জানিয়েছেন হাটটির ইজারাদাররা। ক্রেতাদের কাছে এ বছর ছোট ও মাঝারি আকারের গুরুর চাহিদাই বেশি। ছোট আকারের গরু ৩৫ থেকে ৫০ হাজার, মাঝারি আকারের গরু ৬০ থেকে ৮০ হাজার এবং বড় গরু বিক্রি হচ্ছে ১ লাখ থেকে ১ লাখ ৭০/৮০ হাজার টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। কৃত্রিম কোন ঔষধ ব্যবহার না করে এখানে প্রাকৃতিকভাবে গরু পালন করা হয় বলে উপজেলার পশ্চিমাঞ্চলের এই হাটের আলাদা চাহিদা রয়েছে নবাবগঞ্জের মানুষদের মধ্যে।

বারুয়াখালী হাটে গরু কিনতে আসা ক্রেতা রুহুল আমিন ও বাদল মিয়া জানান, গরুর দাম মোটামুটি সহনশীল পর্যায়ে রয়েছে। ক্রেতারা তাদের সাধ্যের মধ্যে গরু ক্রয় করতে পারছেন।

আবির নামে এক ক্রেতা বলেন, বারুয়াখালী হাটে অনেক গরুর সমাগম। তবে মনে হচ্ছে দাম কিছুটা বেশি যাচ্ছে গরুর মালিকরা। 

গো-খামারি আবুল হাসেম জানান, খৈল, ভূসি, খুদ, কুঁড়া, খড়সহ গো-খাদ্যের মূল্য বৃদ্ধি। খাবারের দাম বাড়লেও সে তুলনায় গরুর দাম বাড়েনি। খরচ তুলে লাভ অনেক কস্ট কর। লাভের মুখ দেখা অনেকটা অনিশ্চিত। তবে বারুয়াখালী ইজারাদার ও কর্মকর্তারা খুব আন্তরিক। আমরা যারা হাটে গরু বিক্রি করতে এসেছি তাদেরকে তারা খুব সমাদর করছেন।

বারুয়াখালী পশু হাটের ইজারাদার ছাত্রলীগ নেতা রাসেল পারভেজ বলেন, কোরবানির বাজারে বেচা-বিক্রি মোটামুটি ভালো হচ্ছে। আমরা ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও সুযোগ সুবিধা দেওয়া চেষ্টা করছি। ক্রেতা ও বিক্রেতারা যাতে কোন ধরনের হয়রানীর শিকার না হয় সেই চেষ্টাই করে যাচ্ছি। তিনি আরও বলেন, ঈদের দিন সকাল পর্যন্ত হাট থাকবে। আমি আশা করব ক্রেতার সমাগম আরও বাড়বে।


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul