adimage

২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
সকাল ১১:১১, শনিবার

থামছেই না আরাম-নগরের স্বেচ্ছাচারিতা !

আপডেট  04:25 PM, অগাস্ট ২৫ ২০১৯   Posted in : জাতীয় দোহার-নবাবগঞ্জের সংবাদ    

থামছেইনাআরাম-নগরেরস্বেচ্ছাচারিতা!

কাজী জোবায়ের আহমেদ :

ঢাকার দোহার উপজেলার দোহার থেকে ঢাকা গামী যাত্রী পরিবহন নগর ও আরাম পরিবহনের স্বেচ্ছাচারিতায় অতিষ্ট হয়ে পড়েছে যাত্রী ও অন্যান্য যানবাহন চালকরা। তাদের ধীর গতিতে গাড়ি চালানো ও একটি পরিবহন অন্য পরিবহন কে সাইড না দেয়ার ফলে রাস্তায় তৈরি হয় দীর্ঘ যানজট। শুধু তাই নয় এমন কচ্ছপ গতীতে চলার ফলে এক যাত্রীর চাকুরী হারানোর ঘটনাও ঘটেছে। বিভিন্ন সময়ে সংবাদ প্রকাশ ও সামাজিক মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ হলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। এ বিষয়ে গত বছর দোহার উপজেলা প্রশাসন থেকে একটি চিঠির মাধ্যমে দুই পরিবহনের এমন কর্মকান্ড বন্ধের নির্দেশ দিলেও কেউই মানছে না সেই নির্দেশনা।

গত বছর “আরাম নগরের স্বেচ্ছাচারিতা চলছেই”শিরোনামে প্রিয় বাংলায় সংবাদ প্রকাশের পর প্রায় এক মাস স্বাভাবিক ভাবে গাড়ি চললেও আবার শুরু হয় স্বেচ্ছাচারিতা।

শনিবার সকাল ১০ টার দিকে উপজেলোর বটিয়া গ্যারেজের সামনে দেখা যায় দীর্ঘ যানজট। সামনে গিয়ে দেখা যায় নগর ও আরাম পরিবহনের দুই চালক সাইড দেয়া না দেয়া নিয়ে তর্কে ব্যস্ত। অন্যদিকে পেছনে অন্য সব যানবাহন আটকে পরে সৃষ্টি হয়েছে দীর্ঘ যানজট। সেই দিকে খেয়াল নেই তাদের।

দুই পরিবহনের এমন কর্মকান্ডে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন অন্যান্য গাড়ির চালক ও যাত্রীরা।

হৃদয় নামে এক অটো চালক জানান, ভাই নগর আর অরামের জন্য কি রাস্তায় আমার গাড়িও চালাতে পারবো না। এটা কি মগের মুল্লুক নাকি?

শামিম নামে এক যাত্রী জানান, আমার ছোট বোন খুব অসুস্থ জরুরী ভিত্তিতে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছি, কিন্তু দেখেন আরাম নগর কি শুরু করেছে। ওদের কারনে যানজট লেগে আছে। এখন আমরা কি করবো ভেবে পাচ্ছিনা।

এব্যাপারে দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা আক্তার রিবা প্রিয় বাংলা অনলাইনকে বলেন, আমরা দুই পরিবহনের মালিক পক্ষবে বারবার সতর্ক করেছি। গত রমজানে কয়েকবার মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে জরিমানা করেছি। আবার এমন ঘটনা ঘটলে আমাদের জানালে সাথে সাথেই মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul