adimage

২৫ মে ২০২০
বিকাল ০৮:২৮, সোমবার

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেই মৃত্যু নয়

আপডেট  10:28 AM, মার্চ ২৮ ২০২০   Posted in : জাতীয় আঞ্চলিক দোহার-নবাবগঞ্জের সংবাদ    

করোনাভাইরাসেআক্রান্তহলেইমৃত্যুনয়

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নবাবগঞ্জে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যক্তি বা প্রবাসী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি। উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে এখন পর্যন্ত ৫৩৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল।  এরমধ্যে বর্তমানে ২৭৭ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন।  ২৬২  জনের সফলভাবে হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ করায় তাদেরকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। তবে নবাবগঞ্জে  এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া যায়নি। কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেই তার মৃত্যু হবে বিষয়টি তেমন নয়। তবে করোনা ভাইরাস অত্যন্ত ছোয়াচে একটি রোগ। বিশ্বে করোনা ভাইরাস আগেও ছিল। তবে নভেলা করোনা ভাইরাস বিশ্বে নতুন করে আবির্ভূত হয়েছে। তাই কেউ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসা নিতে হবে। সুস্থ্য হওয়ার সুযোগ রয়েছে।  বয়স্কদের ক্ষেত্রে মৃত্যুহারটা একটু বেশি। এমন তথ্য  জানান নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ও করোনা কন্ট্রোল কর্নার ফোকাল পার্সন ডা. হরগোবিন্দ সরকার অনুপ। সাক্ষাৎকারে করোনা ভাইরাসের নানা বিষয়ে উঠে এসেছে।

প্রশ্ন: করোনা ভাইরাস কিভাবে ছড়ায়?

ডা.অনুপ: নভেলা করোনা ভাইরাস অত্যন্ত ছোঁয়াচে একটি রোগ। এই রোগ আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি, কাশি, মলের মাধ্যমে অন্যের দেহে ছড়ায়। আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে হ্যান্ডশেক, করমর্দন ও আলিঙ্গন করার মাধ্যমে রোগটি সংক্রমিত হয়ে থাকে।

প্রশ্ন: হোম কোয়ারেন্টাইন মানে কি?

ডা. অনুপ: হোম কোয়ারেন্টাইন এর বাংলা সংগনিরোধ। ছোঁয়াচে রোগের সংক্রমণ প্রতিরোধে সংগ নিরোধ করা হয়। কারো সংগে মিশবে না। কোনো বাড়িতে বা কক্ষে সংগ নিরোধকে হোম কোয়ারেন্টাইন বলে। একটি রুমের মধ্যে অন্যর সংস্পর্শ ছাড়া ১৪ দিন অবস্থান করতে হয়। এই সময়ের মধ্যে বাড়ির লোকজন তিন ফিট দূরত্বে থেকে  খাবার-দাবার সরবরাহ করতে হবে। ভিন্ন টয়লেট ব্যবহার করতে হবে। এক্ষেত্রে কারো বাসায় সংযুক্ত বাথরুম না থাকলে কোয়ারেন্টাইন থাকা ব্যক্তিটি কমোড ব্যবহার করতে পারেন।

প্রশ্ন: হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ হলে করণীয় কি?

ডা. অনুপ: এক্ষেত্রে শারীরিক কোন সমস্যা হলে কার্ডে দেওয়া মোবাইল নাম্বারের মাধ্যমে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। আমরা তাদেরকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করব। এক্ষেত্রে আতঙ্কিত হওয়া যাবে না। চিকিৎসার মাধ্যমে করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়ার রেকর্ড রয়েছে।

প্রশ্ন: কেউ যদি সফলভাবে হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ করে তাহলে তিনি আগের মত চলাচল করতে পারবেন কিনা?

ডা.অনুপ: অবশ্যই আগের মত চলাচল করতে পারবেন। এতে কোনো বিধিনিষেধ নেই। তবে এখন বাহিরে যাওয়া কারো জন্যই নিরাপদ নয়। এছাড়া সরকারি বিধি নিষেধ তো রয়েছেই। তাই প্রয়োজন ছাড়া বাসার বাইরে যাওয়া যাবে না।

প্রশ্ন: করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের করণীয় কি?

ডা.অনুপ: প্রত্যেক নাগরিককে হাঁচি-কাশির শিষ্টাচার মানতে হবে। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে। যখন কেউ হাঁচি দিবে হাতের কনুই নাকের সামনে নিয়ে  হাচিঁ দিবেন। প্রয়োজন ছাড়া কারো বাড়িতে বা বাহিরে যাবেন না। জনসমাগম এড়িয়ে চলবেন। কারো সামনে গেলে ১ থেকে ৩ মিটার দূরত্ব বজায় রেখে চলবেন।

প্রশ্ন: যারা বাড়িতে থাকবেন তাদের জন্য এ সময় করণীয় কি?

ডা. অনুপ: যারা বাড়িতে তাদের জন্য করোনা প্রতিরোধে ৫ টি উপদেশ –

১. সুষম ও পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করুন।
২. প্রতিদিন কমপক্ষে ৩০ মিনিট ব্যায়াম করুন।
৩. সারাক্ষণ করোনা নিয়ে সংবাদ না দেখে চিত্ত বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান দেখুন।


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul