adimage

১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০
বিকাল ০৯:০৮, মঙ্গলবার

কেরানীগঞ্জে নিখোঁজের দুইদিন পর ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

আপডেট  12:53 PM, ফেব্রুয়ারী ১২ ২০২০   Posted in : ঢাকা দোহার-নবাবগঞ্জের সংবাদ    

কেরানীগঞ্জেনিখোঁজেরদুইদিনপরব্যবসায়ীরলাশউদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নিখোঁজের দুইদিন পর নুরুল আমিন মন্টু (৪৭) নামে এক ব্যবসায়ীর লাশ বুধবার দুপুরে বুড়িগঙ্গা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সোয়ারীঘাট বরাবর মাঝ নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের স্বজনরা জানান, নুরুল আমিনের বাসা ঢাকা দক্ষিন সিটির ফরিদাবাদ আরশিন গেইট এলাকায়। কেরানীগঞ্জের কালিগঞ্জে নিউ এনএইচ কম্পিউটার এমব্রয়ডারী নামে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় সেখান থেকে বাসায় ফেরার পথে নিখোঁজ হন নুরুল আমিন।

নিহতের স্ত্রী নীলিমা আমিন পপি জানান, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মোবাইলে নুরুল আমিনের সঙ্গে তার কথা হয়। তখন নুরুল আমিন জানায় দোকান থেকে বেরিয়েছে, বাসায় আসছে। এরপর সে নিখোঁজ হয়। মোবাইলও বন্ধ পাওয়া যায়।

নিহতের বড় বোন জামাই মো. আক্তারউল্লাহ আনসারী জানান, নিখোঁজের ১০ দিন আগে একই মার্কেটের দীপু গার্মেন্টেসের মালিক মো. রতনের সাথে পাওনা টাকা আদায়ের জন্য কথা কাটা-কাটি হয়। নিহত মন্টু রতনের কাছে মোট ২ লাখ ২৬ টাকা পাওনা থাকলেও সে ২০ হাজার টাকা আদায়ের জন্য জোর অনুরোধ এক পর্যায়ে তুমুল ঝগড়া হয়। তিনি আরো জানান, নুরুল আমিন নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে রতন তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আসা বন্ধ করে দিয়েছে এমন কি তাকে মোবাইলও তাকে পাওয়া যাচ্ছে না।
নুরুল আমিনের বড় ছেলে আমিরুল ইসলাম জানান, বাবার নিখোঁজের ঘটনায় মঙ্গলবার তিনি দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় সাধারন ডায়রী করেন। কিন্তু পরদিন বাবার লাশ পেলেন।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহজামান বলেন, মরদেহের মাথা কোমর সহ বেশ কয়েক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে এগুলো কিসের আঘাত তা পরিস্কার বুঝা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্ত  প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর  প্রকৃত কারন জানা যাবে। তবে এঘটনায় পুলিশের যে কার্যক্রম সেটা আমরা শুরু করে দিয়েছি।


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul